গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভুগছেন?ওষুধ ছাড়া ঘরোয়া উপায়েই করুন সমাধান!

গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় ভুগছেন?ওষুধ ছাড়া ঘরোয়া উপায়েই করুন সমাধান!

ওষুধ ছাড়াই পেট থেকে গ্যাস দূর করার সহজ উপায়। সাধারণত যারা গ্যাসের যন্ত্রনায় ভোগেন তারাই ভালো জানেন এটা কতটা অসস্তিকর।আর তাছাড়া যদি একটু ভাজাপোড়া বা মশলাযুক্ত খাবার খেলে তো ‍আরো বেশি সমস্যা।

ফাস্টফুড, ব্যস্ত জীবনযাত্রার যুগে গ্যাস, পেটের অসুখ এখন ঘরোয়া। যে কোনো মানুষের বাসায় গেলে আর যাই হোক গ্যাসের ১পাতা ওষুধ অবশ্যই পাওয়া যায়।

তবে কি গাদা গাদা গ্যাসের ওষুধে এ সম্যা দূর হয়! কিন্তু ঘরোয়া কিছু উপায় আছে যেগুলো প্রয়োগ করলে গ্যাস বা বুক জ্বালা থেকে সহজেই বাচা যায়।

শসা পেট ঠান্ডা রাখতে অনেক বেশি কার্যকরী খাদ্য। এতে রয়েছে ফ্লেভানয়েনড ও অ্যান্টি ইনফ্লেটরি উপাদান যা পেটে গ্যাসের উদ্রেক কমায়।

দই আমাদের হজম শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। এতে করে দ্রুত খাবার হজম হয়, ফলে পেটে গ্যাস হওয়ার ঝামেলা দূর হয়।

দারুচিনি হজমের জন্য খুবই ভালো। এক গ্লাস পানিতে আধ চামচ দারুচিনির গুড়ো দিয়ে ফুটিয়ে দিনে দুই থেকে তিন বার খেলে গ্যাস দূর হবে।

জিরা পেটের গ্যাস, বমি, পায়খানা, রক্তবিকার প্রভৃতিতে অত্যন্ত ফলপ্রদ।পেঁপেতে রয়েছে পাপায়া নামক এনজাইম যা হজমশক্তি বাড়ায়। নিয়মিত পেঁপে খাওয়ার অভ্যাস করলেও গ্যাসের সমস্যা কমে যায়।

কলা ও কমলা পাকস্থলির অতিরিক্ত সোডিয়াম দূর করতে সহায়তা করে। এতে করে গ্যাসের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। এছাড়াও কলার সলুবল ফাইবারের কারণে কলা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করার ক্ষমতা রাখে।

মৌরি ভিজিয়ে সেই পানি খেলে গ্যাস থাকে না। এ ছাড়াও মৌরি পানির অনেক গুণাগুন রয়েছে। যা মানবদেহের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

দুই বা তিনটা লবঙ্গ মুখে দিয়ে চুষতে থাকলে গ্যাসের যন্ত্রনা থেকে মুক্তি পাওয়া যায় আবার সেই সাথে মুখের দুর্গন্ধ থাকলে সেটাও দূর হয়ে যায়।

দুধ পাকস্থ;লির গ্যা;স্ট্রিক এসিডকে নিয়ন্ত্রন করে অ্যাসিডিটি থেকে মুক্তি দেয়। এক গ্লাস ঠান্ডা দুধ পান করলে পেটের গ্যাসের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

স্বাস্থ্য