fbpx

Desh Amar

Online news Portal

গণমাধ্যমের সুবাদে জানতে পেরেছি, তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের কিছু অগ্রহণযোগ্য ও অসংস্কৃত মন্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেছেন। আমি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেই বলে মুরাদ হাসানের ফেসবুক লাইভের ভিডিও ও অডিওর বক্তব্য সম্পর্কে অবগত নই। কিন্তু সমাজসচেতন ব্যক্তি ও মানবাধিকারকর্মী হিসেবে এ বিষয়ে কথা বলার দায় আমার ওপর বর্তেছে। যেহেতু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তাঁকে পদত্যাগ করতে বাধ্য করেছেন, তাতে ধরেই নিচ্ছি যে তাঁর বক্তব্য ও আচরণ অত্যন্ত গর্হিত ও ন্যক্কারজনক।

এ ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে যে প্রশ্ন আমার মনে জেগেছে তা হচ্ছে, এ ধরনের উক্তি যিনি করতে পারেন, এমন এক ব্যক্তি মন্ত্রীর আসনে আসীন হলেন কী করে? এটা সত্য যে আওয়ামী লীগ একটা বিশাল দল এবং বাংলাদেশের প্রাচীন দলগুলোর অন্যতম। এ দলে নানা সময়ে নানা ধরনের ব্যক্তি যুক্ত হয়েছেন। তাঁদের সবাই আওয়ামী লীগের আদর্শ ও উদ্দেশ্য অনুধাবন করে যোগ দিয়েছেন, সেটা না-ও হতে পারে। বিশেষ করে এখন আওয়ামী লীগ দীর্ঘদিন ধরে ক্ষমতায় রয়েছে। ফলে দলে এমন অনেকেই নাম লেখাতে পারেন, যাঁদের ভিন্ন উদ্দেশ্যও রয়েছে
source:prothom alo

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *