কুলখানি ও চল্লিশা আয়োজন কি জায়েজ?

কেউ মারা যাওয়ার পর আমাদের দেশে তার নামে বিভিন্ন দিন খাবারের আয়োজন করা হয়। মৃত্যুর তৃতীয় দিন ‘কুলখানি’র ব্যবস্থা করা হয়। আর ৪০ তম দিনে ‘চল্লিশা’ নামে বিশাল ভোজনের আয়োজন করা হয়। কিন্তু এসব কি ইসলাম সমর্থন করে?

এর উত্তর হলো- ইসলাম কখনো এসব সমর্থন করে না। তবে মৃত ব্যক্তির কাছে সওয়াব পৌঁছানের নিয়তে— কেউ যদি গরিব-দুঃখী ও এতিম-অসহায়দের খাবার দেয়, তাহলে সেটা জায়েজ আছে।

joy

Related Posts

হঠাৎই এক ব্যক্তির একাউন্টে গুগল পাঠিয়েছে আড়াই কোটি টাকা!

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: এ যেন এক পলকেই রাজা বনে যাওয়ার মতো ঘটনা! আচমকা দেখলেন গুগ্‌‌ল থেকে অ্যাকাউন্টে কয়েক কোটি টাকা ঢুকেছে! যা দেখে স্বাভাবিক ভাবেই চক্ষু চড়কগাছ এক…

ডলারের রেট নিয়ে গুগলে বিভ্রান্তি, ফেসবুকে ছড়াচ্ছে গুজব

ডলারের বিপরীতে টাকার মূল্য নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নানা ধরনের বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়ে পড়েছে। বলা হচ্ছে, মার্কিন ডলারের রেট কমে গেছে ১০ টাকা, ডলারের বিপরীতে বাংলাদেশি…

রেডমি ফোন বিস্ফোরণে নারীর মৃত্যু, তদন্তে শাওমি

রেডমি ৬এ স্মার্টফোন বিস্ফোরণে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। বালিশের কাছে ফোনটি রেখে তিনি ঘুমিয়েছিলেন। ঘুমের মধ্যেই তার মৃত্যু হয়। ভারতের দিল্লিতে সম্প্রতি এই ঘটনা ঘটেছে। ওই নারীর…

Leave a Reply

Your email address will not be published.